Home /আল্লাহ আমার রব /মহান স্রষ্টা আল্লাহ তায়ালার পরিচয় লাভ করুন /রব-এর অর্থ

রব-এর অর্থ


১- রব-এর অর্থ:

{তিনিই আল্লাহ তা'আলা, স্রষ্টা, উদ্ভাবক, রূপদাতা} [সূরা: আল-হাশর, আয়াত: ২৪] আল্লাহ একটি শ্রুতিমধুর নাম। যার অর্থও অতিসুন্দর। যার মধ্যে রয়েছে প্রেম, হৃদ্যতা ও ভালোবাসা। তেমনি এর মধ্যে রয়েছে একত্ববাদ, বন্দেগী ও নিষ্ঠাপূর্ণ আনুগত্য। তিনি কতই মহান! তিনিই আল্লাহ তা'আলা, স্রষ্টা, উদ্ভাবক, রূপদাতা। তিনি পৃথিবীর সবকিছু সৃষ্টি করেছেন। সবকিছু তিনি নিজ প্রজ্ঞা অনুযায়ী সৃষ্টি করেছেন এবং সুবিন্যস্ত করেছেন। স্বীয় গুণ ও প্রজ্ঞা অনুযায়ী উদ্ভাবন করেছেন। তিনি অবিনশ্বর, তাঁর সকল গুণাবলী চিরন্তন। আল্লাহ তা'আলা প্রতিপালক। তিনি সকল বান্দাদেরকে নিজ ব্যবস্থাপনা ও বিভিন্ন নেয়ামতরাজি দ্বারা প্রতিপালন করেন। এর চেয়েও সুনির্দিষ্ট করে বলা যায় যে, তিনি তাঁর পছন্দের বান্দাদের অন্তর ও আত্মা এবং আখলাক সমূহ সংশোধন করেন, একারণেই সেসব বান্দাগণ আল্লাহকে এই মহান নামে ডেকেছেন অনেক বেশি। কেননা তারা রবের এমন রুবুবিয়াতই কামনা করে থাকেন বেশি।

রব এমন সত্তা যার কোন উপমা নেই। তিনি তাঁর বান্দাদেরকে নেয়ামত দান করে কিছু দায়িত্ব অর্পণ করেছেন। তিনি সৃষ্টি ও নির্দেশের মালিক। কোন কিছুর সাথে সম্বন্ধ করা ব্যতিরেকে রব শব্দকে কারো জন্য ব্যবহার করা যায় না। যেমন 'রব্বুদ দার', 'রব্বুল মাল' ঘর বা সম্পদের মালিক। সম্বন্ধকরণ ছাড়া সাধারণ অর্থে রব শব্দ শুধু আল্লাহ তা'আলার জন্যই নির্ধারিত।

একজন ইলাহ ও মাবুদের প্রয়োজনিয়তার কথা জানার আগেই মানুষ তার পালনকর্তার প্রয়োজনিয়তা ও তাঁর প্রতি মুখাপেক্ষীতার বিষয়টি জানে এবং যেহেতু আখেরাতের সমস্যার সমাধানের আগেই দুনিয়ার সমস্যার সমাধানের মুখোমুখি মানুষ, সেহেতু আল্লাহকে মাবুদ হিসেবে স্বীকার করার আগেই রব বা পালনকর্তা হিসেবে স্বীকারোক্তি করার বিষয়টি চলে আসে।

'রব' এবং 'রুবুবিয়াহ' শব্দদ্বয় মাহাত্ম্যপূর্ণ কিছু অর্থের অধিকারী। যেমন- ক্ষমতা, রিজিক, সুস্থতা, তাওফীক, যথার্থতা ইত্যাদি। মহান রব্বুল আলামীন বলেন:

{যিনি আমাকে আহার এবং পানীয় দান করেন, যখন আমি রোগাক্রান্ত হই, তখন তিনিই আরোগ্য দান করেন। যিনি আমার মৃত্যু ঘটাবেন, অতঃপর পুনর্জীবন দান করবেন।} [সূরা: আশ-শুরা, আয়াত: ৭৯- ৮১]